কর্পোরেট কর্মী দীপ্তশঙ্কর বক্সি থেকে ইউটিউব ষ্টার The Lazy Bong হয়ে ওঠার গল্প

0
1940
The Lazy Bong

বিগত কিছু বছর ধরে বাংলার বহু ছেলেমেয়ে ইউটিউব কে নিজের কেরিয়ার বানানোর লক্ষ্যে এগিয়ে চলেছে। নব প্রজন্মের ছেলেমেয়েদের কাছে জীবীকা নির্বাহের অন্যতম মাধ্যম হয়ে উঠেছে ইউটিউব। কেউ কেউ চাকরি ছেড়ে ফুলটাইম ইউটিউবার হয়ে উঠছেন এবং তাদের মধ্যেই একজন হলেন দীপ্তশঙ্কর বক্সি যিনি মানুষের কাছে পরিচিত ‘The Lazy Bong’ নামে।

এর আগে একটি বহুজাগতিক সংস্থায় কাজ করতেন দীপ্ত, তার সাথে শখ ছিল নাচের। ডান্স ভিডিও আপলোড করার উদ্দেশ্যেই বছর দুয়েক আগে শুরু করেছিলেন ইউটিউব। তবে তখন সেই চ্যানেলে যৎসামান্য ভিউয়ার্স ছিল যাকে বলেই একদমই চলেনি সেই চ্যানেল ফলে নিরুৎসাহ হয়ে কাজে মন দিয়েছিলেন দীপ্ত।

আবার দুবছর পর হঠাত করেই ফোনে ভ্লগ বানিয়ে আপলোড করতে শুরু করেন ইউটিউবের সেই পুরানো চ্যানেলে। হয়তো ট্রেন্ডকে ফলো করেই ভ্লগিং এর দিকে ঝোঁক বেড়েছিল তার তবে এবার দীপ্ত জানতো না কী চমক অপেক্ষা করে আছে তার জন্য।

হঠাত করেই একদিন ‘The Lazy Bong’ চ্যানেল থেকে একটি ভিডিও ভাইরাল হয়ে যায় ইউটিউবে। পরদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে চক্ষু চড়কগাছ দীপ্তর। হু হু করে বাড়তে থাকে ভিউয়ার্স সেই সাথে সাবস্ক্রাইবার সংখ্যাও ঝড়ের গতিতে বাড়তে থাকে।

কলকাতার বিভিন্ন রেস্টুরেন্টে গিয়ে সেখানকার খাবার টেস্ট করে তার রিভিউ দিয়ে থাকে দীপ্ত। তবে শুধু হোটেল বা রেস্টুরেন্ট বললে ভুল হবে, কলকাতার স্ট্রিট ফুডের যে বিশাল সমুদ্র সেখানেও ডুব দিতে ভালোবাসে ‘The Lazy Bong’।

দীপ্তর চ্যানেলের সবথেকে বড় এক্স ফ্যাক্টর দীপ্তর সারল্য। সাধারণ ছিমছাম ভাবেই ভিডিওয় কথাবার্তা বলে দীপ্ত। ক্যামেরা থেকে শুরু করে এডিট সবকিছু সে নিজেই করে এবং প্রথমের দিকের ভিডিও গুলিই যে বেশ কাঁচা হাতে বানানো তা বলাই বাহুল্য তবে সবটাই নিজের হাতে শিখেছে সে এবং দীপ্তর ফলোয়ার্সরা কাঁচা হাতের সেই ধাঁচকে সাদরে গ্রহণও করেছে।

গুগুল সার্চে The Lazy Bong :

গুগুলে The Lazy Bong লিখে সার্চ করলেই দেখা যাবে, ভক্তরা জানতে চেয়েছে দীপ্তর income, real name, birthday, instagram ইত্যাদি সমস্ত রকমের তথ্য।

এখন অবশ্য নিজেকে অনেক কিছুতেই আপডেট করেছে দীপ্ত এবং দিন দিন নিজেকে আরো উন্নত করার চেষ্টায় নিজেকে ব্যস্ত রাখে। তাই ধীরে ধীরে ৩ লক্ষ পেরিয়ে গেছে ‘The Lazy Bong’ এর সাবস্ক্রাইবার সংখ্যা। আগামী দিনে খুব তাড়াতাড়ি যে এক মিলিয়নও ছাড়িয়ে যাবে তা আর বলার অপেক্ষা রাখেনা তবে এর মধ্যেই জীবনের অন্যতম বড় সিধান্ত নিয়েছে দীপ্ত।

এতদিন ইউটিউব ছিল দীপ্তর দ্বিতীয় কেরিয়ার এবং পাশাপাশি সে কাজ করতো কর্পোরেটে তবে সম্প্রতি সেই কাজ ছেড়ে পুরোপুরি ইউটিউবার হয়েছে সে অর্থাৎ, পার্ট টাইমার ইউটিউবার থেকে ফুল টাইমার ইউটিউবার হয়েছে ‘The Lazy Bong’। এরসঙ্গেই দীপ্তর দ্বিতীয় একটি চ্যানলে সে নিজের ভ্লগ বানিয়ে আপলোড করতে থাকে। নিজের প্যাশনকে নিয়েই ভবিষ্যতে এগিয়ে যাওয়ার স্বপ্ন দেখে দীপ্ত। তার চ্যানেলে ‘Lazy’ শব্দটা থাকলেও আসলে সে মোটেই অলস নয়, উল্টে পরিশ্রম করে বাংলার টপ ইউটিউবারদের মধ্যে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছে সে।

কেমন লাগলো অবশ্যই জানান

SHARE